বিভিন্ন ঋতু এবং আবহাওয়ার জন্য ফ্যাশনেবল পোষাক টিপস
Skip to content

clothes

বিভিন্ন ঋতু এবং আবহাওয়ার জন্য ফ্যাশনেবল পোষাক টিপস

by Ambar life 02 Sep 2023
 বিভিন্ন ঋতু এবং আবহাওয়ার জন্য ফ্যাশনেবল পোষাক টিপস

হাতের পাঁচ আঙ্গুল যেমন সমান না তেমন বাংলাদেশের প্রতিটা ঋতুও এক না। প্রতিটা ঋতু যেমন এক না তেমনি প্রতিটা ঋতু পরিবেশে পোষাকের ক্ষেত্রে যোগ করে নতুন বৈচিত্র‍্য। একেক আবহাওয়ায় জন্য একেক রকম পোশাক স্যুইটেবল। আবহাওয়া পরিবর্তন হওয়ার সাথে সাথে কেমন পোশাক পরলে আপনাকে লাগবে আকর্ষণীয় এবং ট্রেন্ডি চলুন জেনে নেওয়া যাক। 

গ্রীষ্ম 

গ্রীষ্মকালে বাংলাদেশের তাপমাত্রা অনেক বেশি থাকে কারণ এই সময় সূর্য কর্কটক্রান্তি রেখা বরাবর তাপ দেয়। এজন্য এই ঋতুতে অনেক বেশি গরম অনুভূত হয়। তাই এই সময় সবার উচিৎ এমন ফেব্রিকস সিলেক্ট করা যা পরলে স্বস্তি পাওয়া যাবে। সবচেয়ে আরামদায়ক ফেব্রিকস হলো কটন। তাই গরম কালে যারা অতিরিক্ত ঘামেন তারা সুতি কাপড় পরিধান করতে পারেন। 

তবে সব রঙের সুতি কাপড় যে স্বস্তিদায়ক এমনটা কিন্তু নয়। গাড় রঙের তাপ শোষণ ক্ষমতা বেশি। যদি সুতি কাপড়ও হয় তাও কালো কিংবা গাড় নীল রঙ পরলে আপনার গরম আরও বেশি লাগবে। তাই সাদা, বেবি পিংক, আ্যাশ কালারের মতো হালকা কালার পরিধান করুন। কেননা এই হালকা কালারগুলো তাপ শোষণ করার পরিবর্তে তাপ প্রতিফলিত করে। ফলে গরম কম লাগে। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, টেস্ট ক্রিকেট যেহেতু দীর্ঘ সময় ধরে খেলতে হয় এজন্য ক্রিকেটারদের গরম থেকে স্বস্তি দিতে সাদা জার্সি পরানো হয়। 

বর্ষা

চারিদিকে পানিতে থৈ থৈ, কিছুক্ষণ পর পর-ই ঝুম বৃষ্টি। এ যেন ভোজন প্রিয় মানুষদের ভূরিভোজের এক উপযুক্ত সময়। কিন্তু সমস্যাটা হয় যখন বাইরে বের হতে হয়। এ সময় বৃষ্টির ফোঁটা থেকে বাঁচতে অনেকেই রেইন কোট পরে থাকে। এছাড়াও এ সময় যেহেতু বাতাসের আর্দ্রতা বেশি থাকে তাই পোশাক সচেতন মানুষ গ্রীষ্মের মতো বর্ষাতেও হালকা সুতি কাপড় পরিধান করে। 

শরৎ

শরতে আবহাওয়া থাকে নাতিশীতোষ্ণ। না গরম না শীত। শরৎ এর কাশফুল এই সময় সবার মাঝে স্নিগদ্ধতা ছড়ায়। এ সময় হালকা নীল কিংবা সাদা কালারের পোশাকে বেশ মানায় সবাইকে। 

হেমন্ত

হেমন্তকাল শুরু হওয়ার সাথে সাথেই শীতের পূর্বাভাস পাওয়া যায়। এ সময় প্রকৃতি সাজে ভিন্ন এক রূপে। তাপমাত্রা আগের চেয়েও কমে আসে। সন্ধ্যার দিকে কিছুটা শীত অনুভূত হয়৷ বাতাসের আর্দ্রতা ও বাষ্প কম থাকায় খুব একটা ঘাম হয় না। তাই এ সময় আপনি নিজের ইচ্ছে মতো যেকোনো ফেব্রিকস এর কাপড় পরতে পারবেন। 

শীত

কুয়াশার চাদর মুড়ি দিয়ে গুটি গুটি পায়ে আগমন ঘটে শীতের। এ সময় উত্তর দিক থেকে শৈত্যপ্রবাহ বইতে থাকে। তাই এ সময় এমন পোশাক পরা উচিৎ যা শরীরকে উষ্ণ রাখে। এক্ষেত্রে ট্রেন্ডিং হিসেবে হুডি, জ্যাকেট, সোয়েটার এমনকি পাঞ্জাবির সাথে শাল পরলে দারুণ লাগে ছেলেদের। আপনি যদি একজন পাঞ্জাবি প্রেমিক হয়ে থাকেন তবে আমাদের পাঞ্জাবি কালেকশন টা ঘুরে আস্তে পারেন ।

শীত যেন এক উৎসবের মৌসুম। হেমন্তের সময় কৃষকের ঘরে যে ধান ওঠে সেই ধানের চাল দিয়ে শীতকালে বানানো হয় হরেক রকমের ধোঁয়া ওঠা পিঠা। ঠিক এমনই হরেক রকমের শীতের পোশাকে এ সময় সবাই নিজেকে রাঙিয়ে রাখে। এ সময় যে যেমন চায় সেভাবেই নিজেকে রাঙাতে পারে। কেউ কেউ পাঞ্জাবির সাথে চাদর, কেউ জ্যাকেট, হুডি, সোয়েটার যার যেমন ইচ্ছে সে তেমন পোশাকে নিজেকে সজ্জিত করে। 

বসন্ত 

ঋতুরাজ বসন্ত আমাদের মনকে বিভিন্ন রঙে রাঙিয়ে তোলে। ঠিক তেমনই এ সময় পোষাকেও বৈচিত্র‍্য লক্ষ্য করা যায়। এ সময় তাপমাত্রা সহনশীল হওয়ায় রঙিন কাপড় সবাই পরিধান করে।

যারা কর্মব্যস্ত মানুষ তারা আবহাওয়া সাপেক্ষে নিজেদের পোষাক নির্বাচন করতে পারেন। সঠিক পোশাক নির্বাচনের মাধ্যমে আপনি সারাদিন আরাম এবং স্বস্তির নিঃশ্বাস নিতে পারবেন। 

Thanks for subscribing!

This email has been registered!

Shop the look

Choose Options

Recently Viewed

Edit Option
is added to your shopping cart.
this is just a warning